গৌরনদী উপজেরার টরকী বন্দর বালিকা বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রী রোববার সকালে বখাটেদের হুমকির মুখে আতঙ্কে অজ্ঞান হয়ে পরায় গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় স্কুল ছাত্রীর মা বাদি হয়ে ২ জনকে আসামি করে গৌরনদী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
গৌরনদী মডেল থানার এসআই বাবুল হোসেন জানান, ওই স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ওই স্কুল ছাত্রীকে (১১) স্কুলে আসা যাওয়ার পথে প্রায়ই প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে উত্ত্যক্ত করে আসছিল স্কুলের সম্মুখে ওয়াজেদীয়া সুপার মার্কেটের মোবাইল যন্ত্রাংশের ব্যবসায়ী মোঃ নাঈম হোসেন (২২)।
স্কুল ছাত্রী মা অভিযোগ করেন, শনিবার স্কুল ছুটির পর তার কন্যা নাঈমের দোকানের সম্মুখ দিয়ে বাড়ি ফিরারর সময় প্রেমের প্রস্তাব দেয় বখাটে নাঈম। বখাটে নাঈমের প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় তাকে যৌন হয়রানীসহ নানা ধরনের ভয়ভীতি দেখায়। রোববার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে তার কন্যা স্কুলে যাওয়ার সময় বখাটে নাঈমের সহযোগী মেহেদী হাসান তার কন্যাকে নাঈমের কথা শুনতে বলে। কথা না শুনলে পরিনতি খারাপ হবে বলে শাসিয়ে দেয়। স্কুলের প্রধান শিক্ষক ব্রজেন্দ্র নাথ বিশ্বাস জানান, স্কুল ছাত্রী কাঁদতে কাঁদতে তার কক্ষে উপস্থিত হয়ে প্রধান শিক্ষকের কাছে বিষয়টি বলেন। পরবর্তীতে স্কুলছাত্রীর অভিভাবকরা উপস্থিত হয়ে গৌরনদী মডেল থানাকে অবহতি করেন। খবর পেয়ে গৌরনদী মডেল থানার এসআই বাবুল হোসেন সঙ্গীর্য় ফোর্স নিয়ে স্কুলে উপস্থিত হয়ে স্কুল ছাত্রীসহ তার অভিভাবকদের থানায় নিয়ে আসেন। থানায় বসে আতঙ্কে স্কুল ছাত্রী অজ্ঞান হয়ে পরে। অজ্ঞান অবস্থায় তাকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
গৌরনদী মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাহাবুবুর রহমান জানান, অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেপ্তারের জোর প্রচেষ্টা চলছে।